jamdani

কপালে থাকলে কী না হয়!

আমাদের ফোনে বা ইমেলে নিত্যদিনই স্প্যাম কল, মেসেজ বা মেল এসে থাকে। গুগল হোক বা স্মার্ট ফোন, এই সকল অননুমোদিত মেসেজকে স্প্যাম হিসেবে চিহ্নিত করে। মেল-এর ক্ষেত্রে তা স্প্যাম তালিকায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এই ধরণের মেসেজগুলি থেকে সরকারি বা বেসরকারি উদ্যোগে নানাভাবে সতর্ক করা হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লক্ষ্য করা যায়, এই ধরণের মেসেজগুলিতে সাধারণত লটারি পুরস্কার, অর্থপ্রাপ্তি সম্পর্কিত তথ্য এসে থাকে। যা থেকে বহুক্ষেত্রেই টাকা খুইয়েছেন অনেকেই। তবে সব ক্ষেত্রেই যে জালিয়াতি কারবার চলে তেমন কিন্তু নয়, সম্প্রতি তা প্রমাণ করলেন আমেরিকার নাগরিক লরা স্পিয়ার্স। যা এদেশে হয় তা ওদেশেও হবে, এমন কোনও কথা আছে?

লরা মিচিগানের ওকল্যান্ড কাউন্টি থেকে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর মিচিগান লটারি ওয়েবসাইট থেকে একটি মেগা মিলিয়নস টিকিট কিনেছিলেন। সেখান থেকে তিনি ৭৫,২০২,৭৯০.৭৩ টাকার পুরস্কারকে তিন গুন করতে সক্ষম হন। কারণ এর জন্য তিনি খেলেছিলেন মেগাপ্লাইয়ার (Megaplier)।

লরা স্পিয়ার্স-এর কথায়, তিনি ফেসবুকে মেগা মিলিয়নস জ্যাকপট নিয়ে একটি বিজ্ঞাপন দেখেন। সেই থেকে তিনি একটি লটারি টিকিট কেনেন। কিছুদিন পরে সে নিজের ব্যক্তিগত প্রয়োজনে একটি ইমেল খুঁজছিলেন। যা খুঁজে না পেয়ে তিনি স্প্যাম ফোল্ডার ঘেঁটে দেখতে থাকেন। আর সেখানেই দেখতে পান লটারি সম্পর্কিত একটি ইমেল। যেখানে বলা হয় তিনি একটি লটারি পুরস্কার জেতেন। তিনি আরও সুনিশ্চিত হতে নিজের লটারি অ্যাকাউন্টে গিয়ে দেখেন। সেখানেও জানতে পারেন তিনি লটারি থেকে ২২৫,৫৮৭,৮১৬.৪০ টাকা বা ৩ মিলিয়ন ডলার জিতেছেন

তিনি আরও বলেন, এই অর্থ তিনি নিজের পরিবারের সঙ্গে ভাগ করে নেবেন। এছাড়াও তিনি খুব শীঘ্রই কর্মজীবন থেকে অবসর নেওয়ার পরিকল্পনা করছেন। সত্যি, কপালে থাকলে কী না হয়!

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes