jamdani

বিয়ের কার্ড ছাপানোর আগে মাথায় রাখুন এই টিপসগুলি

একটা সময় ছিল পরিবারে বিয়ের আনন্দ ছিল অন্যরকম, আজ কোনও পরিবারের কাছে বিয়ের অনুষ্ঠানের সংজ্ঞাই বদলে গিয়েছে। এখন বিয়ে মানে কোনও যুগলের কাছে অনেক বেশি তাঁদের সম্পর্কের উদযাপন। কয়েকটা মুহূর্ত সুন্দর করে গুছিয়ে রাখা। তাই বিয়ের অনেক আগে থেকেই প্ল্যানিং শুরু হয়ে যায়। পুরনো সময়ের মতো একমাসের মধ্যেই বিয়ের প্রস্তুতি হয় না। তাই বিয়ের কার্ড নিয়েও অনেক প্ল্যানিং থাকে। বিয়ের কার্ড হল সেই শুভারম্ভ। তাই বিয়ের কার্ড তৈরি করার সময় কার্ডের সৌন্দর্যে তো গুরুত্ব দেবেনই, সঙ্গে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন।

কার্ড চৌকো হলেই দেখতে ভাল লাগে

বর্তমানে নানা রকমের আধুনিক কার্ডের প্রচলন দেখা যাচ্ছে। যেমন গোলাকার, ত্রিকোণ ইত্যাদি। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা, আয়তাকার কার্ড তৈরির পরামর্শ দিচ্ছেন। তাঁদের মতে, অন্য আকার নতুন বর-বউয়ের জীবনে জটিলতা আনতে পারে। তবে আয়তকার কার্ডের মধ্যেও আপনি নানা রকম ডিজাইন পাবেন। সেই ডিজাইন অনুযায়ী কার্ড তৈরি করুন। কার্ড তো চৌকো হলেই দেখতে ভাল লাগে।

পাত্র-পাত্রীর ছবির বদলে কার্টুন ব্যবহার

অনেকেই কার্ড ছাপাতে দেওয়ার আগে সম্পূর্ণ কার্ডের ডিজাইন ডিজিটাল মাধ্যমে তৈরি করে নেন। সেটা আপনিও করতে পারেন। তবে কার্ডে পাত্র পাত্রীর প্রি ওয়েডিং শুটের ছবি দেওয়া হচ্ছে। এতে বিয়ের কার্ডের আসল সৌন্দর্যও নষ্ট হয়। আপনি ক্রিয়েটিভ কার্টুন ব্যবহার করতে পারেন। সেই ভাবেই বিয়ের কার্ড ডিজাইন করুন। দেখতে সুন্দর লাগবে।

কার্ডের রং

বিয়ের কার্ড লাল ও মেরুন রঙের হলেই দেখতে ভাল লাগে। কোনওরকম ধূসর রং কার্ডে ব্যবহার না করাই ভাল। বিশেষ করে কালো ও ছাই রং একেবারেই ব্রাত্য বিয়ের কার্ডে। কারণ এই রং পরবর্তীকালে বৈবাহিক জীবনে সমস্যার সৃষ্টি করবে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। বিয়ের কার্ডের ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভাল রং হল যে-কোনও উজ্জ্বল ও ঘন রং। লাল, নীল, মেরুন রং বেছে নিতে পারেন।

বিয়ের কার্ডে দেবতার ছবি!

বিশ্বাস করুন, খুব খারাপ দেখায়। বোঝা যায় না, পুজোর নিমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে না কি বিয়ের নিমন্ত্রণ। তবে অনেকেই চান, তাঁদের ছেলেমেয়ের বিবাহ জীবন শুরু করুক দেবতার আশীর্বাদ নিয়ে। তাই তাঁরা বিয়ের কার্ডে দেবতার ছবি দেন। কিন্তু আপনাকে সাবধান থাকতে হবে এই বিষয়ে যে আপনি কোন দেবতার ছবি দিচ্ছেন এবং তাঁর কীরকম অবস্থার ছবি দিচ্ছেন।

বিয়ের কার্ড ডিসেন্ট হলেই ভাল লাগে

ছিমছাম ও সুন্দর বিয়ের কার্ডই ভাল লাগে। বিয়ের কার্ড ডিসেন্ট লুক বেশ আকর্ষণীয়। সঙ্গে কোনও বিশেষ কবিতার কয়েক লাইন থাকতে পারে। সম্পূর্ণ ইংরেজি বা বাংলায় বিয়ের কার্ডের লেখা ছাপতে পারেন। কোনও সুন্দর আঁকাও থাকতে পারে বিয়ের কার্ডে। খুব বেশি জমকালো না হওয়াই ভাল। আপনি বিয়ের কার্ডে চন্দন, গোলাপ ও জুঁইয়ের সুগন্ধে মাখা কাগজ ব্যবহার করতে পারেন।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes