jamdani

চুল হোক বা ত্বক, সবেতেই সজনে

সজনে পাতাকে অনেকে সজনে শাকও বলে থাকেন। যে নামেই ডাকুন না কেন ঔষধি গুণ সম্পন্ন এই গাছের পাতা, ফুল, ফল সবেরই উপকারি গুণ রয়েছে। শরীরের জন্য সজনে কতটা উপকারি তা কম-বেশি প্রায় সকলেরই জানা। তবে জানেন কি, আমাদের ত্বক ও চুলের পুষ্টি যোগাতেও সজনে পাতা ভীষণ উপকারি। ত্বকের যাবতীয় সমস্যাকে দূরে রেখে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে এই পাতা। অ্যাকনে বা ব্রণর সমস্যা দূর করার পাশাপাশি ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে। এমনকি ত্বক উজ্জ্বল করতেও সজনে পাতার জুরি মেলা ভার।

সজনে পাতায় রয়েছে ৮ রকমের অ্যামিনো অ্যাসিড, শর্করা, ক্যালসিয়াম, আয়রন, জিংক, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-বি১, ভিটামিন-বি২, ভিটামিন-সি এবং প্রোটিন। যা আমাদের ত্বক এবং চুলের জন্য দারুণ উপকারি।

ত্বকের যত্নে সজনে পাতার প্যাকঃ

আগেই বলেছি ত্বক থেকে বয়সের ছাপ, ব্রণ এবং পিগমেন্টেশন দূর করতে সজনে পাতা ভীষণ কার্যকরী। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, যা ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এছাড়াও সজনে পাতা ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে এবং উন্মুক্ত পোর্স সঙ্কুচিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। বাড়িতে যেভাবে বানাবেন সজনে পাতার ফেস প্যাক-

উপকরণঃ সজনে পাতার পাউডার (পাতা শুকিয়ে গুঁড়ো করে নেওয়া) ১ টেবল চামচ, মধু ১ টেবল চামচ, গোলাপ জল ১ টেবল চামচ, সামান্য পাতিলেবুর রস।

  • সজনে পাতা গুঁড়ো, মধু, গোলাপ জল এবং লেবুর রস নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। একেবারেই ঘন হয়ে গেলে সামান্য জল মেশাতে পারেন।
  • এই মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করলে বলিরেখা, ব্রণ, দাগ-ছোপ কমার পাশাপাশি ত্বক উজ্জ্বল হবে।

চুলের পরিচর্যায় সজনে পাতার হেয়ার মাস্কঃ

সজনে পাতায় রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান, যা স্কাল্প পরিষ্কার করতে দারুণ কার্যকরী। পাশাপাশি শুষ্ক স্কাল্পের সমস্যা দূর করে আর্দ্রতা বজায় রাখে, ফলে খুসকির সমস্যাও দূর হয়। এছাড়াও চুলের গোঁড়া মজবুত করে চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ঘটাতে সাহায্য করে সজনে পাতা।  বাড়িতে যেভাবে বানাবেন সজনে পাতার হেয়ার মাস্ক

উপকরণঃ সজনে পাতা গুঁড়ো ২ টেবল চামচ, হেনা পাউডার ১ টেবল চামচ, প্রয়োজন মতো টকদই এবং ৩ ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল।

  • সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন।
  • এবার মিশ্রণটি চুলের আগা থেকে গোঁড়া পর্যন্ত ভালোভাবে লাগিয়ে নিন।
  • ৪৫ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা রাখার পর ভালোভাবে ধুয়ে শ্যাম্পু করে নিন। কন্ডিশনার লাগাতে ভুলবেন না।

সপ্তাহে দু’বার এই প্যাক ব্যবহার করতে পারলে খুসকির উপদ্রপ কমবে, চুলের গ্রোথ হবে এবং চুল ঝলমলে হবে।

 

 

 

Trending


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes