jamdani

মৃত্যুর ২৫ বছর পরেও একই রকম প্রাসঙ্গিক রবি ঘোষ

রণবীর ভট্টাচার্য

বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগ নিয়ে অনেকেই লিখেছেন, পুরনো সিনেমার অনেক রেট্রোস্পেকটিভ হয়েছে। তবে একরাশ নায়ক, নায়িকা, চরিত্রাভিনেতার মধ্যে থেকেও কিছু কিছু মানুষ অমর হয়ে গিয়েছেন বাংলা সিনেমায়। রবি ঘোষ সেরকমই একটা নাম। আশুতোষ কলেজের সেই রবীন্দ্রনাথ ঘোষ দস্তিদারের কিন্তু অভিনেতা হওয়ার কথা ছিল না, বরং বডি বিল্ডার হওয়ার কথা ছিল। জীবনের গতিপ্রকৃতি আবার শুরুর দিকে ব্যাঙ্কশাল কোর্টের চাকরি দিয়েছিল তাকে। তবে কপালে যদি সত্যজিৎ রায় বা তপন সিনহার সিনেমায় অভিনয় করার কথা থাকে, তাহলে অভিনয় তো হবেই!

হীরক রাজার দেশে কিংবা গল্প হলেও সত্যি বা অরণ্যের দিনরাত্রি, এরকম অগুনতি সিনেমার লিস্ট তৈরি করে ফেলা যায় যেখানে রবি ঘোষ ছাড়া কাউকে ভাবা সম্ভব নয়! তবে যারা কাজ করেছেন ওনার সাথে, সবাই এক বাক্যে স্বীকার করেছেন যে রবি ঘোষ তার কাজ নিয়ে অসম্ভব খুঁতখুঁতে ছিলেন। প্রতিটি চরিত্রের জন্য নিজেকে তৈরি করতেন এবং এক চরিত্র থেকে আরেক চরিত্রে যাওয়ার জন্য আলাদা প্রস্তুতি নিতেন।

১৮৬টি সিনেমায় অভিনয় এবং পরিচালক হিসেবে দুটি সিনেমায় যুক্ত ছিলেন তিনি। মৃত্যুর শেষ দিন পর্যন্ত অভিনয় করেছেন তিনি, কাজের প্রতি নিখাদ ভালোবাসা থেকে। ওনার ঝরঝরে ইংরেজি ছিল বাহবা দেওয়ার মত। আর কমিক টাইমিং ছিল অনবদ্য! রবি ঘোষকে বাংলার বা ভারতের চার্লি চ্যাপলিন বললেও অত্যুক্তি হবে না, এটা হলফ করে বলা যেতে পারে।

প্রথম বিশ্বের কোন অভিনেতা হলে নির্ঘাত অস্কার পেতেন রবি ঘোষ। তবে একটাই আফসোস, বেঁচে থাকতে কমেডিয়ানের ট্যাগ ছেড়ে অভিনেতার মর্যাদা ইন্ডাস্ট্রি দেয়নি। কোন অজানা কারণে যে তিনি হিন্দি সিনেমায় অভিনয় নিয়ে ভাবেননি, সেটাও অদ্ভুত। উত্তর কুমার হোক কিংবা সৌমিত্র, সমানতালে অভিনয়ে পাল্লা দিয়েছেন রবি ঘোষ। তবে মৃত্যুর পঁচিশ বছর পরেও কিন্তু রবি ঘোষ একইরকম প্রাসঙ্গিক থেকে গেছেন। জানতে ইচ্ছে হয়, এই যুগে বেঁচে থাকলে রবি ঘোষ কি ওয়েব সিরিজে অভিনয় করতেন? নির্ঘাত পরলোকে মুচকি হাসছেন উনি।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes