jamdani

তিনি বাঙালিরও

রুমা প্রধান|

বাংলা ভাষার প্রতি তাঁর ছিল অশেষ ভালোবাসা। ঝরঝরে বাংলা উচ্চারণে তিনি বলতেন, ‘বাংলা ভাষা আমার ভীষণ প্রিয়, কিন্তু শিখেও বলতে পারি না!’ বাংলা ভাষায় গান গাওয়ার জন্য তিনি গৃহশিক্ষক রেখে বাংলা শিখেছিলেন। শিক্ষক ছিলেন বাসু ভট্টাচার্য। মোট ৩৬টি ভাষায় গান গেয়েছেন তিনি। সব ভাষার প্রতিই তাঁর শেখার ভাবনাপথ একই ছিল। তবে বাংলা ভাষার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক যেন একটু বেশিই আবেগের, মায়ার। পরিচালক প্রভাত রায় তখন পরিচালক শক্তি সামন্তের সহকারী। শক্তিবাবুর বেশিরভাগ ছবিতেই লতাজি গান গাইতেন। সেই সূত্রে প্রভাত রায়ের সঙ্গেও তাঁর অল্পবিস্তর পরিচয়। এরপর তিনি যখন ‘প্রতিদান’ ছবির পরিচালনার কাজ হাতে নেন, তখন লতাজির কাছে একটি গানের প্রস্তাব রেখে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন। সেই বিখ্যাত গানটি হল – ‘মঙ্গল দীপ জ্বেলে অন্ধকারে দু’চোখ…’ গানটি লিখেছিলেন গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার এবং সুর দিয়েছিলেন বাপি লাহিড়ী। এটা তাঁর প্রথম ছবি শুনেই লতাজি রাজি হয়ে যান। গানটি শুনে তিনি বলেছিলেন, ‘বাহ, খুব সুন্দর গান হয়েছে।’ এমনকি পারিশ্রমিক দিতে গেলে, উনি নিতে অস্বীকার করে ছিলেন।

তিনি মনে করতেন বাংলা ও মারাঠি ভাষার মধ্যে সংস্কৃতি এবং ভাষাগত একটি যোগসূত্র রয়েছে। এমনকি তাঁর প্রিয় সাহিত্যিক ছিলেন শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। শ্রী রামকৃষ্ণদেবেরও ভক্ত ছিলেন তিনি। রবিঠাকুরের গান ছিল তাঁর পাথেয়। বাঙালির খুব কাছের মানুষ ছিলেন তিনি। হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, সলিল চৌধুরী, শচিন দেব বর্মন, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে লতা মঙ্গেশকরের ছিল পারিবারিক আত্মীয়সুলভ সম্পর্ক। রবীন্দ্রনাথের গান গাওয়ার আগে তিনি তাঁর হেমন্তদার থেকে গানের আক্ষরিক অর্থ বুঝে নিতেন। যাতে অন্তর দিয়ে বাংলা গানগুলো গাইতে পারেন। শুধু কাজের ক্ষেত্রেই নয় বাঙালিদের সঙ্গে জমিয়ে পারিবারিক, বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কও ছিল তাঁর। জানা গিয়েছে, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে সাধ খাইয়েছিলেন তিনি। ‘আনন্দমঠ’ ছবিতে বিখ্যাত ‘বন্দেমাতরম’ গানটি গাওয়ার জন্য কোনওরকম পারিশ্রমিক নিতে অস্বীকার করেছিলেন লতাজি। হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কে বলেছিলেন, ‘টাকার জন্য নয়, আপনি বলেছেন বলেই গেয়েছি।’

সলিল চৌধুরী লতা মঙ্গেশকরকে সাক্ষাৎ সরস্বতীদেবী বলতেন। সঙ্গীতশিল্পী অন্তরা চৌধুরীর (সলিল চৌধুরীর কন্যা) কথায়, বাবা তাঁর প্রিয় গানগুলো লতাজির জন্যই তুলে রাখতেন। ২০১৩ সালে প্রকাশিত হয় ‘সলিল রচনা সংগ্রহ’ যার ভূমিকা লিখেছিলেন স্বয়ং লতা মঙ্গেশকর।

বাংলা ভাষায় বহু গান গেয়েছেন তিনি। এমনকি বাংলা চলচ্চিত্রেও তাঁর কণ্ঠের অবদান অসীম। লতাজির কন্ঠে ‘প্রেম একবারই এসেছিল নীরবে’, ‘না যেও না’, ‘আকাশপ্রদীপ জ্বলে’, ‘ভালোবাসার আগুন জ্বেলে কেন চলে যাও’, ‘তারে আমি চোখে দেখিনি’, রবিঠাকুরের গানে- ‘শাওন গগনে ঘোর ঘনঘটা’, ‘কুহেলী ছবিতে হেমন্তবাবুর সঙ্গে তুমি রবে নীরবে’-এর মতো বিখ্যাত সব গান গেয়ে বাঙালির হৃদয় জয় করেছেন তিনি। লতা মঙ্গেশকর নিজেই সুর। দেবী সরস্বতীর মানবরূপ। আর সরস্বতীর যে কখনও বিসর্জন হয় না। তিনি ছিলেন, আছেন আর যুগযগান্ত ধরে থাকবেন।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes