jamdani

নজির গড়ুন গোটা দেশের সামনে, তবেই না নারী !

অনির্বাণ গুহ|

বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্সের পরই এই বিশ্ববিদ্যালয়, দেশের মধ্যে র‍্যাঙ্কিং-এ কার্যত দু’নম্বরে থাকা দিল্লির জওহর লাল নেহরু (জেএনইউ) বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাধীনতার পর এমনটা ঘটেনি। একটু অবাক লাগলেও এযাবৎ দেশের এই অন্যতম নামী প্রতিষ্ঠানে কোনও দিনও কোনও মহিলাকে উপাচার্যের চেয়ারে বসতে দেখা যায়নি! (পড়তে পারেন বসানো হয়নি) যেখানে সাম্প্রতিক অতীতেও ঐশী ঘোষদের সোচ্চার কণ্ঠ গোটা দেশে ছড়িয়ে গিয়েছিল! সেই জেএনইউতেই কিনা এমন নজির! একটু চোখে লাগবে তো বটেই!

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনীদের নামগুলোয় একবার চোখ বুলিয়ে নিন। দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন, অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর, লেখিকা নিবেদিতা মেনন, শিশু শ্রমের বিরুদ্ধে এযাবৎ লড়ে যাওয়া শান্তা সিংহ, মানেকা গান্ধী, এযাবৎ নিদেনপক্ষে ষোলোটা এনকাউন্টার করা আইপিএস সংযুক্তা পরাশর…. তালিকাটা খুব লম্বা। আর এহেন বিশ্ববিদ্যালয় এই নাকি এতদিন যোগ্য কোনও নারীকে পাওয়া যায়নি যাকে উপাচার্যের আসনে বসানো যায়!
এতবছর পর, কার্যত এই প্রথম কোনও মহিলাকে জেএনইউ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের চেয়ারে বসার কেন্দ্রীয় সুপারিশে চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছেন দেশের রাষ্ট্রপতি। শান্তিশ্রী ধুলিপুরী পণ্ডিত, স্বভাবতই শিরোনামে, আলোচনায় উঠে এসেছেন। জেএনইউ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মহিলা উপাচার্য বলে কথা!
বিশ্ব বিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, পুনে বিশ্ববিদ্যালয়, গোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন দায়িত্ব সামলে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের এই অধ্যাপিকা শান্তিশ্রী-র নিয়োগ নিয়েও অবশ্য বেশ কিছু কটাক্ষ হয়েছে! সে তালিকায় প্রথম নাম বরুণ গান্ধীর, যাই হোক সে বিতর্কে না গিয়ে আমাদের কুর্নিশ এই অনন্যাকে। এর আগে এক ডজন উপাচার্য ওই পদে বসে যা যা করেছেন আশাকরি শান্তিশ্রী তাকে ছাপিয়ে যাবেন। ছাপিয়ে তো তাকে যেতেই হবে! প্রথম মহিলা ওই বসেছেন, তাকে তো প্রমাণ করতেই হবে! অনন্যা শান্তি শ্রী-এর জন্য এটুকু শুভেচ্ছা তো থাকবেই।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes