jamdani

অদ্বিতীয়া, যিনি… গুণেও সরস্বতী ।। দময়ন্তী সেন

স্ব স্ব ক্ষেত্রে ওদের কাজই গুণমুগ্ধদের সংখ্যা বাড়িয়েছে। ওরা আমার আপনার সকলেরই পরিচিত।  এই অদ্বিতীয়াদের শ্রী ওদের গুণেরই প্রতিচ্ছবি। বাগদেবীর আরাধনার দিনে তাই এই গুণে সরস্বতীদের আরও একবার আপনাদের সামনে তুলে ধরা।  সেই  সরস্বতীদের সারণীতে রয়েছেন দময়ন্তী সেন, সংঘমিত্রা বন্দ্যোপাধ্যায়, শান্তি মল্লিক, শ্রেয়া ঘোষাল ও সোয়েতা দত্ত।  দময়ন্তী সেন, সংঘমিত্রা বন্দ্যোপাধ্যায়, শান্তি মল্লিক, শ্রেয়া ঘোষালকে নিয়ে আলাপচারিতায় রণবীর ভট্টাচার্য আর সোয়েতা দত্তের সঙ্গে পরিচয় করাচ্ছেন তানিয়া চক্রবর্তী।

সালটা ২০১২, ফেব্রুয়ারি। নতুন সরকার মহাকরণের মসনদে বসেছে কয়েক মাস। এর মধ্যেই তোলপাড় পড়ে গেল পুরো রাজ্য একটি ধর্ষণ কান্ড নিয়ে। পার্ক স্ট্রিট গণধর্ষিতা থেকে রক্তমাংসের সুজেট জর্ডন যখন শহর কলকাতার মেকি মানবিকতাকে বেআব্রু করে দিলেন, তখন এক ভাবলেশহীন অথচ কর্তব্যপরায়ণ মহিলা আইপিএস অফিসারের কথা জেনেছিল সারা রাজ্য। ঠিকই ধরেছেন, তিনি দময়ন্তী সেন – এক আপোষহীন সোজা শিরদাঁড়ার মানুষ।

১৯৯৬ ব্যাচের আইপিএস দময়ন্তী সেন এখন কলকাতা পুলিশের বিশেষ নগরপাল (২) পদে আছেন। মিডিয়ার লাইমলাইটে নেই তিনি, কিছুটা অন্তরালেই কাজ করে চলেছেন লালবাজারে। কয়েক মাসে অস্থায়ী ভাবে নগরপালের দায়িত্ব নিয়েছিলেন যখন তদানীন্তন নগরপাল সৌমেন মিত্র ছুটিতে গিয়েছিলেন ।

২০১২ সালের সেই সময়ে লালবাজারে অপরাধ দমন শাখার জয়েন্ট কমিশনার ছিলেন দময়ন্তী সেন। ঘটনার দুই মাসের মধ্যে ‘রুটিন’ বদলিতে শহরে ছাড়তে হয়েছিল ওনাকে। তারপর সাতটা বছর বিভিন্ন পদে রাজ্য ঘুরতে হয় অন্যতম সুদক্ষ এই অফিসারকে। কিন্তু সেই নিয়ে কোন আক্ষেপ বা মিডিয়ায় বক্তব্য দেখা যায়নি তার। নিজের কাজ, নিজের উর্দির প্রতি তার এই দায়িত্ববোধ তাকে অন্য স্তরে নিয়ে গিয়েছে।

আজ সরস্বতী পুজোর দিন যখন সব বাঙালি বাগদেবীর আরাধনায় ব্যস্ত, তখন নিভৃতে সবাই আরো একবার কুর্নিশ জানাবে দময়ন্তী সেনকে। যখন সারা পৃথিবী তোমাকে সাহায্য করতে পারবে না বা করবে না, তখন নিজের উপর বিশ্বাস রাখতেই হবে। আপনাকে কর্মজীবনের অনেক শুভেচ্ছা রইল, আইপিএস দময়ন্তী সেন।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes