jamdani

কলা-আপেল-কুমড়ো-মধু শুষ্ক ত্বকে করবে যাদু

শীতকাল মানেই স্বাভাবিকভাবে ত্বক তো শুষ্ক হবেই। তবে যাদের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক, তারা এই সময় বাড়তি সমস্যায় ভোগেন। যেমন ত্বক ফেটে যাওয়া, জ্বালাভাব, খোলস ওঠা ইত্যাদি। এই ধরণের সমস্যায় বাজারচলতি ক্রিম বা ময়েশ্চারাইজার সাময়িক কাজ করে। দীর্ঘস্থায়ী ফল পেতে হলে ঘরোয়া উপাদানেই মিলবে সুরাহা।

ত্বককে ভেতর থেকে ময়েশ্চারাইজ করার চটজলদি উপায় হল ফেস মাস্ক। এবার আপনি ভাবতেই পারেন কিনতে পাওয়া গেলে বাড়িতে তৈরির ঝক্কি পোহাব কেন? বাজারচলতি ফেস মাস্কে কেমিক্যাল এবং এমন কিছু উপাদান থাকে যেগুলো আপনার ত্বকের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে। অথবা এমনটাও হতে পারে, আপনার ঠিক যেই উপাদানগুলো প্রয়োজন, তার সবটা হয়তো কেনা ফেস মাস্কে থাকবে না। তাই কিছুটা সাশ্রয়ের পথে হেঁটেই দেখুন না। ত্বকও হেসে উঠবে, পকেটও বাঁচবে! শুষ্ক ত্বকের জন্য রইল ৩টি ঘরোয়া ফেস মাস্ক।

মধু-কলা-অলিভ ফেস মাস্কঃ

উপকরণ – মাঝারি আকৃতির কলা ১টা, মধু ১ টেবল চামচ, অলিভ য়েল ১ টেবল চামচ।  

  • এই তিনটি উপাদান নিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন।
  • মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • পরে ঈষদুষ্ণ জলে ধুয়ে নিন
  • সপ্তাহে অন্তত৪ দিন ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

আপেল-কুমড়ো মাস্কঃ

উপকরণঅর্ধেক আপেল (বাটা), এক টুকরো কুমড়ো বাটা (৩ ইঞ্চি মাপের), মধু ১ টেবল চামচ, ওটামিল ১ টেবল চামচ

  • সবকিছু ভালোভাবে মিশিয়ে নিন।
  • মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • সপ্তাহে ২-৩ দিন ব্যবহার করুন এই মাস্ক।

ডিম-মধুর মাস্কঃ

উপকরণডিম ১টা, মধু ১ টেবল চামচ, অলিভ অয়েল আধ টেবল চামচ, ৫ ফোঁটা গোলাপ জল

  • পরিমাণ মতো সমস্ত উপকরণ দিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন।
  • এই মিশ্রণটি ২০ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রাখুন।
  • পরে জল দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিন।
  • সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন এই মাস্ক ব্যবহার করলে শুষ্ক ত্বকে আর্দ্রতা বজায় থাকার পাশাপাশি ত্বক উজ্জ্বল এবং মসৃণ হবে।

Trending


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes