jamdani

মন যখন যেখানে খুশি

অভিষেক ব্যানার্জী

‘কোথাও আমার হারিয়ে যাওয়ার নেই মানা… মনে মনে’। এখন যা পরিস্থিতি বাইরে যাওয়ার কোনও উপায় নেই। তাই আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করে নেওয়া টেমি, রাভাংলা, পেলিং ভ্রমণ। ইউকসাম গ্যাংটকের এই জায়গাগুলো ঘুরে বেড়ানো আমার কাছে এক মজার অভিজ্ঞতা। আর সঙ্গে যদি নিজের গাড়ি থাকে, তাহলে আর আটকায় কে। ২০১৮ সালে আমার প্রথম গাড়ি কেনা। তারপরেই বেড়িয়ে পড়া ফ্যামিলি নিয়ে। তার আগে অবশ্য বাইক ট্যুর করতাম। এক কথায় আদ্যোপান্ত এক অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষ আমি।  

২০১৯ এ আমরা অফ সিজনে গিয়েছিলাম সিকিমে। এই সময়টায় বেশি ট্যুরিস্ট না থাকায় বেশ ফাঁকা ফাঁকা সব কিছু। আমি ও আমার স্ত্রী মৌ দুজনেই ঘুরতে ভালোবাসি। আর এখন নতুন যোগ হয়েছে আমাদের ছেলে বর্ণ।  

সিকিমের এই জায়গা গুলো বেশ অফবিট। টেমি চা বাগান রাভাংলা থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এটি সিকিমের একমাত্র চা বাগান এবং ভারতের অন্যতম শীর্ষ চা বাগানগুলির একটি। আন্তর্জাতিক বাজারে এর ব্যাপক চাহিদা।  

অর্গানিক চা চাষ হয় ঠিকই তবে আদতে জায়গাটা স্বর্গের নন্দন কানন। হয়ত নন্দন কাননও এর কাছে তুচ্ছ। যতদূর চোখ যায় ঢেউ খেলানো চা গাছের সারি। উঁচু নিচু। পাহাড়টা যেখানে শেষ হয়েছে ঠিক সেখানে আকাশের নীল নেমেছে সবুজের বুকে। তার মধ্যে স্ফটিকের মত স্বচ্ছ মেঘেরা ঘুরে বেড়াচ্ছে আপন মনে। একদিকে কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ শোভা অন্যদিকে পাহাড়ি ঢালে সবুজে মোড়া বিস্তৃত চা বাগান, নানা রকম পাখির ডাক আর নিঃস্তব্ধ প্রকৃতি। শীতকালে এই শোভা আরও বেড়ে যায় যখন বাগানে মাঝে মাঝে চেরি ফুটে ওঠে। সঙ্গে প্রিয়জন থাকলে ছুটির আমেজ আরও দ্বিগুণ হয়ে যাবে।  

আপনারা চাইলে যখন খুশি বেরিয়ে পড়তে পারেন। কিন্তু যদিও এখন কোভিড সিচুয়েশন। কিছুদিন নাহয় আপনার ইচ্ছেগুলো মনের ভেতর লুকিয়ে রাখুন। আর মনে মনে ঘুরে আসুন টেমি চা বাগান, রাভাংলার পাহাড়ি সৌন্দর্য। আর পেলিং-এর সহজ সরল মানুষদের সঙ্গ।  

আশে পাশের দ্রষ্টব্য স্থান- টেমি টি বাগানের আশেপাশে দর্শনীয় স্থান বলতে রাভাংলা, নামচি। এছাড়া সামদ্রূপ্সে, পেমিয়্মংসে নাস্ট্রি, নামচি চারধাম, নামচি রোপওয়ে, রক গার্ডেন, রাভাংলা বুদ্ধ পার্ক ইত্যাদি।  

কিভাবে যাবেন- কলকাতা থেকে নিজস্ব গাড়ি কিংবা ট্রেনে শিলিগুড়ি। শিলিগুড়ি থেকে টেমি চা বাগানের দূরত্ব ১১০ কিমি। ৪ ঘন্টার যাত্রায় আপনি বোর হবেন না এটা বলতে পারি।  

কোথায় থাকবেন- বর্তমানে বহু পর্যটক যান টেমি চা বাগানে। তবে বেশিরভাগই যান রাভাংলা বা নামচির সাইট সিন করতে। এখানকার হোম স্টে-তে বসে কাঞ্চনজঙ্ঘাকে সাথে রেখে, গরম চায়ে চুমুকের অভিজ্ঞতাটাই আলাদা। অন্যান্য হোমস্টে ছাড়াও টেমি চা বাগানের মধ্যেই রয়েছে টেমি টি এস্টেট । বাজেটের মধ্যেই থাকার ব্যবস্থা। খরচ ১০০০-১৫০০ জন প্রতি খাবার সহ।  

নীচের ভিডিও লিংক-এ গিয়ে ক্লিক করুন। আর দেখে নিন ঘুরতে যাওয়ার আগে সিকিমের দর্শনীয় স্থানগুলির এক ঝলক।  

 

চ্যানেল নাম: urcameraguy  

ভিডিও কার্টেসি- অভিষেক ব্যানার্জী 

 

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes