jamdani

নির্জন দ্বীপের একমাত্র বাড়ির গল্প

চারদিকে নীল সমুদ্র। মাঝখানে একটা সবুজ দ্বীপ। আর সেই সবুজ দ্বীপের মধ্যে সাদা বিন্দুর মতো একটা বাড়ি। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া এই ছবিটির সঙ্গে মোটামুটি সবাই পরিচিত। এই ছবির সঙ্গেই জানা যায়, বাড়িটি পৃথিবীর সবচেয়ে একাকী বাড়ি। যার আশেপাশে আর কোনও বাড়ি নেই। নেই কোনও প্রতিবেশী। আসলেই কি এই বাড়ির অস্তিত্ব আছে?

ছবিটি নিয়ে অনেকেই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। অনেকের দাবী, এটি ফটোশপ করে বসানো হয়েছে। সবটাই নাকি গ্রাফিক্সের কাজ। তবে না, এরকম বাড়ি সত্যিই আছে। আইসল্যান্ডের দক্ষিণে এলিরি দ্বীপে এই বাড়িটি আছে। তবে সেখানে কোনো স্থানীয় বাসিন্দা থাকেন না।

জানা গেছে, একসময় এই দ্বীপে ৫টি পরিবার থাকত। তবে তাঁরা প্রত্যেকেই একে একে দ্বীপ ছাড়তে শুরু করেন। তাই এখানে কোনো মানুষ থাকে না। তাহলে কে থাকে এই বাড়িতে? সেটিও একটি ইতিহাস।

 

১৯৫০ সালে এলিরি হান্টিং অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে এই বাড়িটি তৈরি হয়। ইউরোপ, আমেরিকার নানা দেশ থেকে পর্যটকেরা শিকারের উদ্দেশ্যে এলিরি দ্বীপে যেতেন। তাঁদের থাকার জন্যই মূলত এই বাড়িটি তৈরি। তবে বর্তমানে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের কারণে আর শিকারের অনুমতি পাওয়া যায় না। ফলে বাড়িটিও পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে আছে। তবে আজও তার মালিকানা এলিরি হান্টিং অ্যাসোসিয়েশনের। তবে আপনি চাইলে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করে সহজেই এখানে কয়েক রাত থাকার অনুমতি নিতে পারেন। এমন একটা দ্বীপে ছুটি কাটিয়ে আসা সত্যিই বেশ রোমাঞ্চকর কিন্তু।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes