jamdani

নতুন স্বাদে শীতের আমেজ

শীত কাল মানেই আহারে বাহারে ভোজনরসিক বাঙালি । তা মিষ্টি হোক কি ঝাল। সবেতেই রসনার স্বাদ নিতে এই মরসুমে মত্ত থাকে বাঙালি। তবে শীতের আমেজকে আরোও মজাদার করে তুলতে পিঠে পায়েসের ভিন্নতায় আনা হলো আরোও রকমভেদ। পুলি পিঠে, পাটিসাপ্টা, ভাপা পিঠে, চুসি পিঠে, গোকুল পিঠে, মুগের পুলি অন্যদিকে চালের পায়েস, সিমায়ের পায়েস, নলেন গুড়ের পায়েস, রসগোল্লার পায়েস আরোও কত কী। শীতকাল পড়া মানেই আট থেকে আশি সকলেরই মন পড়ে থাকে এই আইটেম গুলোর দিকে। তবে একঘেয়ামি অনেকসময়ই দেখা যায় যে সেই চিরাচরিত পিঠে খেয়ে খেয়ে আমরা বোর হয়ে যাই। তাই আজ এমন দু’টো অন্যরকম পিঠে আর পায়েসের রেসিপি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো, যেগুলোতে আছে বেশ ফিউশন টাচ।

চিড়ে ও পনিরের পিঠে
চিড়ের নানারকম পদ তো খেয়েছেন, চিড়ের পোলাও, চিড়েভাজা ইত্যাদি; আবার পনিরের নানা রেসিপি প্রায়শই রান্না হয়. কিন্তু চিড়ে আর পনিরের পিঠে খেয়েছেন কি? দেখে নিন এই দারুন সুস্বাদু খাবারের রেসিপিটা।

 

উপকরণ
চিড়ে – ২ কাপ
পনির – ১০০ গ্রাম
আতপ চালের গুঁড়ো – ২ টেবিল চামচ
গুঁড়ো চিনি – দেড় কাপ
এলাচ গুঁড়ো – ১ চা চামচ
কাজু – ১ টেবিল চামচ
পেস্তা – ১ টেবিল চামচ
কিশমিশ – ১ টেবিল চামচ
ঘি – ৩ টেবিল চামচ
সাদাতেল – ২ টেবিল চামচ

প্রণালী

  • প্রথমেই খুব ভালো করে চিড়ে ধুয়ে জল ঝরিয়ে চটকে নিন।
  • এবারে পনির ভালো করে ম্যাশ করুন।
  • একটা মিক্সিং বোলে চিড়ে, পনির, চালের গুঁড়ো, কাজু, কিশমিশ, পেস্তা, এলাচ গুঁড়ো এবং গুঁড়ো চিনি নিয়ে খুব ভালো করে মেশান।
  • এবারে ওই মিশ্রণটি থেকে ছোট ছোট লেচি কেটে বলের আকারে গড়ে নিন।
  • একটা কড়াইতে সাদা তেল আর ঘি গরম করে বল গুলি লাল লাল করে ভাজুন।
  • ব্যাস, হয়ে গেলো ‘চিড়ে পনিরের পিঠে’। গরম গরম পরিবেশন করুন।

পাস্তার পায়েস
আমরা যারা ইতালিয়ান খাবার খেতে ভালোবাসি, তাদের কাছে পাস্তা একটা ভীষণ চেনা আর প্রিয় খাদ্য। রেড-সস পাস্তা কিংবা চিজে ভরপুর হোয়াইট সস পাস্তা কি ভালোই না লাগে খেতে। কিন্ত আপনি কি কখনো পাস্তার পায়েস খেয়েছেন? না খেলে এই রেসিপিটা দেখে বানিয়ে নিন।

 

উপকরণ
পাস্তা – আধ কাপ
দুধ – ১ লিটার
পাটালি গুড় – স্বাদানুযায়ী
ঘি – ২ টেবিল চামচ
তেজপাতা – ১ টি

প্রণালী

  • একটা পাত্রে ভালো করে জল ফুটিয়ে তাতে পাস্তা সেদ্ধ করুন।
  • পাস্তা সেদ্ধ হয়ে গেলে জল ঝরিয়ে নিন।
  • এবারে একটা ফ্রাইং প্যানে ঘি গরম করে তাতে সেদ্ধ করা পাস্তাটা হালকা ভেজে তুলে রাখুন। পাস্তা ভাজার সময়ে সাবধানে করবেন যাতে বাদামি রং না হয়।
  • এবারে অন্য একটা পাত্রে দুধ গরম করুন।
  • দুধ ফুটতে আরম্ভ করলে তাতে তেজপাতা আর আগে থেকে ভেজে রাখা পাস্তাটি দিয়ে আবার ফোটাতে থাকুন।
  • এভাবে ফুটতে ফুটতে দুধ যখন ঘন হয়ে অর্ধেক হয়ে যাবে তখন পাটালি গুড় দিয়ে দিন। গোটা ব্যাপারটাই কিন্তু রান্না করতে হবে কম আঁচে। তা না হলে পুড়ে যাবার সম্ভাবনা থেকে যাবে। মাঝে মাঝেই একটা হাত দিয়ে নাড়তে থাকুন যাতে তলা ধরে না যায়।
  • গুড় গলে গিয়ে দুধে মিশে গেলে এবং পাস্তাটি বেশ মাখামাখা হয়ে গেলে আঁচ বন্ধ করে মিনিট পাঁচেক ঢাকা দিয়ে রাখুন।
  • এবারে ঠান্ডা করে ফ্রিজে রেখে দিন কিছুক্ষন।
  • ঠান্ডা ঠান্ডা পাস্তার পায়েস পরিবেশন করুন শীতের বিকেলে।

Trending


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes