jamdani

দেশ বিদেশের বিভিন্ন বৌদ্ধ মঠে সরস্বতী পুজো

প্রকৃতি উপাসনাই ছিল প্রাচীন ভারতের মুখ্য ধর্ম। কয়েকশো বছরের সেই আচার অনুষ্ঠান ধীরে ধীরে পরিবর্তন হয়। আসে ভিন্নমতের মূর্তি-উপাসনা ও দেবদেবীভাবনা। এভাবেই প্রাচীন হিন্দুধর্মের দেবদেবীর অনেক বৌদ্ধ ও জৈন ধর্মের মধ্যে চলে আসে। যার মধ্যে দেবী সরস্বতী একজন।

হিন্দুশাস্ত্রে শিবের শক্তি ‘দুর্গা’, সেরকম ব্রহ্মার শক্তি হল ‘সরস্বতী’। এখান থেকেই বজ্রযানগ্রন্থে সরস্বতীকে বৌদ্ধতান্ত্রিকেরা স্থান দিলেন। সেখানেই সবার উপরে থাকলেন বোধিসত্ত্ব আর তাঁর নিচেই হল মঞ্জুশ্রীর স্থান। বৌদ্ধদের সাধনামালায় সরস্বতীর পাঁচটি নাম পাওয়া গিয়েছে-‘মহাসরস্বতী‘, ‘বজ্রবীণা সরস্বতী‘, ‘বজ্রসারদা‘, ‘আর্য সরস্বতী‘  ‘আর্যবজ্র সরস্বতী‘। এরা সবাই এখানে মাতৃমূর্তি।

বৌদ্ধধর্ম প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে সরস্বতীর উপাসনা ক্রমশ ভারত থেকে চীন, জাপান, জাভা, কম্বোডিয়ার সংস্কৃতির সঙ্গে মিশে যায়। সেখানে গড়ে ওঠে মন্দির। জাপানে পূজিত ‘বেন-তেন’ যিনি সৌভাগ্যের দেবী, তিনিই আসলে ভারতের সরস্বতী। বেন-তেনের রূপ হিসেবে বেশ কয়েকটি নাম প্রচলিত আছে। ‘হম্পি বেন-তেন’, ‘কোঙ্গো সিও’, ‘বেন-জাই-তেন’ ইত্যাদি।

এভাবেই বিভিন্ন মঠগুলিতে দেবী সরস্বতীর পুজো শুরু হয়। আর প্রাচীন ভারতের ঐতিহ্যের সাথে সাথে উপাসনা শুরু হয় দেব-দেবীর।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes