jamdani

দেখতে পুচকে, তবে কার্যকারিতা দারুণ !

পাতিলেবু ভিটামিন সি-তে ঠাসা। ভিটামিন সি আপনার প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে দারুণ কার্যকর। আজ গোটা দুনিয়ায় যা পরিস্থিতি, তাতে নিজেকে সুস্থ রাখার গুরুত্ব ক্রমশ বাড়ছে। বিশেষ করে সর্দি-কাশির মতো সমস্যা সারাতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে এই ভিটামিনের। তাই পাতিলেবুর রস সামান্য গরম জলে মিশিয়ে খেয়ে আপনার দিন শুরু করুন। খেতে পারেন লেবুর জলও।


ভিটামিন সি-এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ত্বক আর চুল ভালো রাখতে দারুণ কার্যকর। প্রতিদিন আমাদের ত্বকের কোষে কিছু ড্যামেজ বা ক্ষয়ক্ষতি হয়। আপনার খাদ্যতালিকায় ভিটামিন সি থাকলে এই ক্ষতির মেরামতি শুরু হয় তাড়াতাড়ি। ফ্রি র‍্যাডিকাল থাকে নিয়ন্ত্রণে, বাড়ে কোলাজেন সিন্থেসিস। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে ঝলমলে, চিরনবীন, টানটান। আপনি লেবু খাওয়ার পাশাপাশি ফেস প্যাকেও তা মিশিয়ে নিতে পারেন। চুলের প্যাকে যদি লেবু মেশান, তা হলে খুশকির উপদ্রব চলে যাবে ধীরে ধীরে। তবে মনে রাখবেন, যাঁদের ত্বক খুব স্পর্শকাতর, তাঁদের অনেক সময়ে ভিটামিন সি সহ্য হয় না, ত্বক লাল হয়ে র‍্যাশ বেরোতে আরম্ভ করে। তাই ত্বকে বা স্ক্যাল্পে লাগানোর আগে অবশ্যই একবার প্যাচ টেস্ট করে নিন।

এ ছাড়াও পাতিলেবু আপনার ঘরকন্নার কাজেও দারুণ সাহায্য করতে পারে। ধরুন মাইক্রোওয়েভে খুব তেলচিটে ময়লা ধরেছে। একটা বাটিতে লেবু আর জল নিয়ে পাঁচ মিনিট মাইক্রো করে নিন। তার পর বাটিটা বের করে ভালো করে মুছে নিন পরিষ্কার একটা কাপড় দিয়ে। আপনার মাইক্রোওয়েভ ঝকঝক করবে! লেবুর খোসায় থাকে এসেনশিয়ান অয়েল। হলুদ বা সবুজ খোসাটা লেবুর উপর থেকে ছাড়িয়ে নিন পাতলা করে, তার পর জলে ফুটিয়ে নিতে হবে ভালো করে। ছেঁকে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে আপনার নিজস্ব ফ্রেশনার। এবার ঘরে ছড়ান, পোকামাকড় ধারে-কাছেও আসবে না। মিশিয়ে নেওয়া যায় ঘর মোছা জলেও।

এক জগ জলে লেবু আর শসার স্লাইস ছেড়ে রাখুন সারা রাত, পরদিন সেটা ছেঁকে পান করুন সারা দিন ধরে — তৈরি আপনার নিজস্ব ইনফিউজড ওয়াটার। সারা দিন ধরে খান, শরীর পাবে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা।

রান্না করতে গিয়ে দেখলেন, ভিনিগার বাড়ন্ত? লেবুর রস ব্যবহার করুন বিকল্প হিসেবে। সাদা জামাকাপড় ঝকঝকে হচ্ছে না কিছুতেই? কাচার সময় এক ফোঁটা লেবুর রস যোগ করুন জলে – দেখবেন কেমন ম্যাজিক হয়।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes