jamdani

দুষ্টু বাচ্চা সামলাবেন কী করে

সব বাচ্চাই একটু-আধটু দুষ্টুমি করে, সেক্ষেত্রে একটু প্রশ্রয় দিতে বাধা নেই। কিন্তু খেয়াল রাখুন, তা যেন মাত্রাছাড়া না হয়। ঠিক সময়ে রাশ না ধরলে পরবর্তীকালে এটাই অনেক বড়ো সমস্যা হয়ে দেখা দেয়।

  • মা-বাবাই সন্তানের প্রথম শিক্ষক। তাই বাচ্চাকে কোনওরকম নির্দেশ দেওয়ার আগে নিজেও সেটা পালন করুন। যদি বাড়ির বড়োরা চিৎ্কার করে ঝগড়া করেন, একে অপরকে দোষারোপ করেন, রাগের বশে জিনিসপত্র ছুঁড়ে ফেলেন, তাহলে সন্তানও এ ধরনের অভ্যেস রপ্ত করবেন।
  • সব বাচ্চাই একরকম হয় না। তাই প্রথমেই বাচ্চাকে ভালো করে বুঝুন। বল খেলতে গিয়ে কাচ ভেঙে ফেলা বা কোনও জিনিস নষ্ট করা কিন্তু এক নয়। প্রথমবার সাবধান করা জরুরি। দ্বিতীয় ক্ষেত্রে শাসনের প্রয়োজন আছে। বাচ্চাকে দুষ্টুমির খারাপ দিকগুলি বোঝান। ভালো-মন্দের বোধ ছোটোবেলা থেকেই মনের মধ্যে গেঁথে দিন।
  • ছোটদের ছোটো ছোটো চাহিদাগুলো খেয়াল রাখুন। কিন্তু তাই বলে যখন যা আবদার করবে তা-ই কিনে দেবেন না। দুষ্টুমি কমাতে যদি খেলনা কিনে দেন, তা কিন্তু হিতে বিপরীত হয়। তাকে আদর করুন, বায়না মেটান। কিন্তু অতিরিক্ত প্রশ্রয় দেবেন না।
  • বাচ্চারা কেন দুষ্টুমি করছে তা বোঝার চেষ্টা করুন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বাচ্চারা বাড়ির সকলের থেকে গুরুত্ব পেতে নানা রকমের দুষ্টুমিতে মেতে ওঠে। প্রতিদিন অন্তত কিছুটা সময় দুজনে একসঙ্গে সন্তানের সঙ্গে কাটান। পরিবারের সকলে মিলে নানারকম গেম খেলুন। কাডলিং করুন। দেখবেন আপনার সন্তান দারুণ উপভোগ করছে।
  • সন্তান দুষ্টুমি করলে ওকে ঠান্ডা মাথায় বোঝান। অন্য কারোর উপস্থিতিতে বাচ্চাকে বকবেন না। এতে বাচ্চার আত্মসম্মান বোধে লাগবে। কারণ বাচ্চাদের আত্মসম্মান বোধ প্রবল। এওরকম করলে বাচ্চা আরও বেশি দুষ্টু হয়ে যায়।
  • বাচ্চা একটু বড়ো হয়ে গেলে ওকে নিজে সিদ্ধান্ত নিতে দিন। জামাকাপড় বা খেলাধুলো নিজের পছন্দমতো বাছতে দিন। ঘরের ছোটোখাট কাজের দায়িত্ব দিন। পাশাপাশি ডিসিপ্লিন গড়ে তুলুন। ছোটোবেলা থেকে ডিসিপ্লিনের মধ্যে থাকলে সন্তানের আত্মনিয়ন্ত্রণ গড়ে ওঠে।

Trending

Most Popular


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes