jamdani

চুলে জট পাকানো রোধ করতে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস জেনে নিন!

আমাদের সবারই কম বেশী প্রতিদিন জট পাকানো চুলের মুখোমুখি হতে হয়। আর যদি লম্বা চুল হয়, তবে তো কথাই নেই। জট ছাড়াতে গিয়ে অনেক সময় লেগে যায়। তার উপরে আছে জট ছাড়াতে গিয়ে চুল ছিঁড়ে যাওয়ার কষ্ট। ড্রাই এবং ড্যামেজ চুলে কিন্তু জট বেশী পাকায়। তাই আমাদের চুলটাকে হেলদি রাখা খুবই ইম্পরট্যান্ট। চুলে জট পাকানোর কারনগুলো আগে জেনে নিই

  • চুলে হাইড্রেশনের অভাব
  • ভেজা চুলে ঘুমানো
  • নিয়মিত চুল না আঁচড়ালে
  • চুলের ডগা ট্রিম না করলে
  • চুলের কিউটিকল ড্যামেজ হলে

কিভাবে চুলে জট পাকানো বন্ধ করবেন

  • চুলে কন্ডিশনার ব্যবহার। কন্ডিশনার ব্যবহারের ফলে চুল অনেক বেশী স্মুদ হয়ে যায়। কন্ডিশনার চুলকে সফট আর স্মুদ বানায়, ফলে চুলে সহজেই জট পাকিয়ে যায় না। তাই অবশ্যই শ্যাম্পুর পরে কন্ডিশনার লাগাতে ভুলবেন না।
  • মোটা দাঁতের চিরুনি ব্যবহার। মোটা দাঁতের চিরুনি চুল না ছিড়ে সহজেই চুলের জট খুলে দিতে পারে। এছাড়া আজকাল চুলের জন্য হেয়ার ডিট্যাঙ্গেলার ব্রাশ কিনতে পাওয়া যায়, যেগুলা চুলের জট ছাড়ানোর জন্য খুবই ভালো কাজ করে।
  • হেয়ার সিরাম, স্প্রে, কন্ডিশনার জট পাকানো চুলের জন্য ভালো কাজ করে। চুলকে সফট এবং স্মুদ করে এবং জট পাকানো রোধ করে।
  • হেয়ার মাস্ক ব্যবহার। যতই ব্যস্ত হোন না কেন, চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সপ্তাহে একদিন অন্তত চুলে হেয়ার মাস্ক লাগাবেন। কারন, হেয়ার মাস্ক চুলের টেক্সচার ইম্প্রুভ করতে সাহায্য করে। হেয়ার মাস্ক ব্যবহারের ফলে চুল হাইড্রেট হয় এবং ড্রাই কিউটিকেলস গুলো অনেক বেশী স্মুদ হয়ে যায়।
  • চুলে পর্যাপ্ত পরিমানে ময়েশ্চার যোগাতে নিয়মিত চুলে তেল লাগানো খুবই জরুরী। কারন, হেলদি হেয়ারে সহজে জট পাকাবে না। আপনি আপনার পছন্দের যে কোনো হেয়ার অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।
  • ঠান্ডা জল দিয়ে চুল ধোয়া। স্নানের শেষে ঠান্ডা জল দিয়ে চুল ধোবেন। এতে করে চুলের কিউটিকেলসগুলো ক্লোজ হয়ে যাবে এবং চুল ভাঙা রোধ হবে।
  • হিট স্টাইলিং টুলস অ্যাভয়েড করুন। এতে চুল ড্যামেজ হয়ে যেতে থাকে। হিট স্টাইলিং টুলস ব্যবহারের আগে অবশ্যই চুলে হিট প্রোটেকশন স্প্রে লাগিয়ে নেবেন।
  • ঘুমানোর সময়েও চুল প্রোটেক্ট করুন। ঘুমানোর আগে অবশ্যই চুল সফট হেয়ার ব্যান্ড দিয়ে বেঁধে নেবেন। আর বালিশের কভার ব্যবহারেও সচেতন হতে হবে।
  • অ্যালকোহলযুক্ত প্রোডাক্ট অ্যাভয়েড করা। অ্যালকোহল আমাদের চুলকে ড্রাই বানিয়ে দেয় এবং চুলের কিউটিকলগুলোর টেক্সচার নষ্ট করে দেয়।

Trending


Would you like to receive notifications on latest updates? No Yes